টক দইয়ের উপকারিতা সম্পর্কে জানেন কি?

টক দইয়ের উপকারিতা

রিয়া সরকারঃ প্রাচীনকাল থেকেই টক দই খাওয়ার প্রচলন রয়েছে। টক দই কমবেশি আমরা সবাই খেয়ে থাকি। যদিও খাওয়া ছাড়াও টক দই নানা ভাবে খাওয়ায় ব্যবহার হয়। টক দই দিয়ে বিভিন্ন রকম ডেসার্ট বানানো যায় যা বাড়ির বাচ্চারা খেতে খুব ভালোবাসে। তবে টক দই এর পুষ্টিগুণ বা উপকারিতা সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানিনা।

টক দইয়ে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন এবং মিনারেল যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী। এছাড়াও টক দইয়ের রয়েছে নানা ধরনের অজানা উপকারিতা।

হজম শক্তি বৃদ্ধিতে টক দই উপকারী

কখনো কখনো আমাদের খাওয়া বেশি হয়ে যায়, খাওয়ার পর অসস্তি হতে থাকে। আবার কোন অনুষ্ঠানে আমরা অনেক বেশি খেয়ে ফেলি যার ফলে আমাদের হজম ঠিক করে হয়না এবং নানান সমস্যা হতে থাকে। যেমন পেট ব্যথা, বুকে চাপ ধরে থাকা ইত্যাদি। এইসব সমস্যা সমাধান করা যায় টক দই খেলে। খাওয়ার পর একটু টক দই খেলে এই সব সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে।

ব্লাড প্রেসার কন্ট্রোল করে টক দই

যাদের ব্লাড প্রেসার আছে তাদের অনেক নিয়ম মেনে চলতে হয়। নানান ধরনের ওষুধও খেতে হয় প্রেসার কন্ট্রোলে রাখতে। কিন্তু আমরা হয়ত অনেকেই জানিনা টক দইয়ে রয়েছে মিনারেলস যা কোলেসটোরাল করায় এবং ব্লাড প্রেসারকে কন্ট্রোলে রাখে।

হাড়ের শক্তি বাড়ায়

আমরা অনেকেই অনেক ছোট থেকে খুব পরিশ্রমের কাজ করে থাকি এবং সেই তুলনায় পর্যাপ্ত খাওয়াও হয়না। যার ফলে বয়স বাড়ার সাথে সাথে হাড়ের শক্তি কমতে থাকে এবং শুরু হয় নানান সমস্যা। কোমরে ব্যথা, হাঁটুতে ব্যথা, এগুলো যেন লেগেই থাকে। যদি আমরা প্রতিদিন টক দই খেতে পারি তাহলে এইসব সমস্যা থেকে রেহাই পেতে পারি। দইয়ের মধ্যে রয়েছে ক্যালসিয়াম যা আমাদের হাড়ের শক্তি বৃদ্ধি করে।

দুশ্চিন্তা কমাতে সাহায্য করে

কাজের চাপেই হোক অথবা ব্যক্তিগত জীবনেই হোক আমরা প্রত্যেকেই কিছু না কিছু নিয়ে দুশ্চিন্তা করি। আজকাল এর যেন কোন কমতি নেই। মানুষের জীবন যত বেশি যান্ত্রিক হয়ে যাচ্ছে দুশ্চিন্তা যেন ততোই বাড়ছে। আমরা ভেবে পাইনা কি করলে আমরা চিন্তা মুক্ত থাকতে পারব। কিন্তু আমরা জানিনা নিজেকে চিন্তা মুক্ত রাখার ওষুধ আমাদের ঘরেই রয়েছে। টক দই আমাদের দেহের কর্টিসল উৎপাদন নিয়ন্ত্রণে রাখে যা আমাদের শরীরের স্ট্রেস হরমোন দূর করে এবং সুস্থ রাখে।

ত্বকের জন্য টক দইয়ের উপকারিতা

টক দই আমাদের ত্বকের নানা সমস্যার দূর করে থাকে। টক দইয়ে রয়েছে জিঙ্ক এবং ভিটামিন ই যা আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। যেকোনো ধরনের ইনফেকশন দূর করতে টক দই দারুণ ভাবে কাজ করে। রুক্ষ ত্বকের জন্য টক দই খুবই উপকারী। টক দই রোদে পোরা দাগ দূর করে এবং ত্বককে মসৃণ করে।

ওজন কমাতে টক দইয়ের উপকারিতা

শুরুতেই বলেছিলাম টক দইয়ের উপকারিতা সম্পর্কে আমরা অনেকেই অনেক কিছু জানিনা, তেমনি একটি তথ্য হল টক দই আমাদের ওজন কমাতে সাহায্য করে। আমরা ওজন কমাতে কত কিছু করে থাকি, অনেকে আবার খাওয়া বন্ধ করে দেন ওজন বাড়ার ভয়ে। প্রতিদিন টক দই খেলে আপনার ওজন ধীরে ধীরে কমে যাবে। এমনকি আপনি যদি কোন ডায়েট ফলো করতে থাকেন তার সাথেও টক দই খাওয়া যেতে পারে।

বাচ্চারা অনেক সময়ই দুধ খেতে চায়না যার ফলে পুষ্টির ঘাটতি দেখা দেয়। দুধের পরিবর্তে বাচ্চাদের টক দই খাওয়াতে পারি। তাতে পুষ্টির অভাব দূর হবে আর স্বাদও বদলাবে।

এছাড়াও টক দই আমাদের ইমিউনিটি বাড়াতে সাহায্য করে। যারা টক দইয়ের উপকারিতা সম্পর্কে জানতেন না এবং খাওয়া থেকে বিরত থাকতেন আজ থেকে টক দই খেতে শুরু করুন এবং শরীরের নানা সমস্যা দূর করুন।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

অনলাইনপ্রেস/আরএস/এনজে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *