খুশকি দূর করার উপায়, প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে সমাধান

খুশকি দূর করার উপায়

রিয়া সরকার: খুশকি দূর করার উপায় জেনে রাখা আমাদের জন্য জরুরি। কারণ আমরা সবাই কম বেশি খুশকি সমস্যায় ভুগি।

এই খুশকির কারণে বাইরে অনেককেই লজ্জায় পরতে হয় এবং তারা নানা উপায় খুঁজতে থাকেন তা দূর করার।

নানা ধরনের পণ্য ব্যবহার করার পরও তারা খুশকি নিরাময় করতে পারেন না।

তাই আজ জেনে নেওয়া যাক প্রাকৃতিক কিছু উপাদানের মাধ্যমে খুসকি দূর করার উপায় সম্পর্কে।

খুশকি দূর করতে নারকেল তেলের ব্যবহার

যুগ যুগ ধরেই আমরা নারকেল তেলের গুনাগুণ সম্বন্ধে জেনে আসছি। এটি হতে পারে খুশকি দূর করার সহজতম উপায়।

খুশকি দূর করতে নারকেল তেল অতুলনীয় কাজ করে।

নারকেল তেল একটু গরম করে চুলের গোরায় লাগালে তা যেমন খুশকি দূর করতে সাহায্য করে তেমনি রুক্ষ ত্বককে মইশচারাইজ করে।

অলিভওয়েল ও লেবু দিয়ে খুশকি দূর করার উপায়

অলিভওয়েল গরম করে চুলে লাগিয়ে তা হালকা হাতে ঘষতে হবে।

তারপর গরম জলে একটি টাওয়াল ভিজিয়ে নিয়ে চুলে জড়িয়ে রাখতে হবে ৫ মিনিট।

এভাবে ৩-৪ বার চুলে গরম টাওয়াল জড়িয়ে রাখতে হবে ৫মিনিট করে।

এই পদ্ধতিটির সাহায্যে চুলের গোরায় খুব জলদি তেল মিশে যায়।

সারারাত চুলে তেল লাগিয়ে রাখতে হবে এবং পরদিন সকালে লেবুর রস আধ ঘণ্টা লাগিয়ে রাখতে হবে।

এর ফলে আমাদের চুল যেমন ঝরঝরে হবে তেমনি খুশকি দূর হবে। এটি  কার্যকর খুশকি দূর করার উপায় সমূহের অন্যতম।

এই মিশ্রণটি সপ্তাহে ১ থেকে ২ বার ব্যবহার করা যেতে পারে।

শ্যাম্পু ও ভিনেগার ব্যবহারর মধ্য দিয়ে খুশকি দূর করার উপায়

সপ্তাহে অবশ্যই কমপক্ষে ৩বার শ্যাম্পু করতে হবে।

অল্প শ্যাম্পু ব্যবহার করে চুল ভালো করে পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

শ্যাম্পুর আধ ঘণ্টা আগে ২ টেবিল চামচ ভিনেগার চুলে ভালো করে লাগিয়ে নিতে হবে।

শ্যম্পু কারার পরেও ২ টেবিল চামচ ভিনেগার ১ মগ পানির সাথে মিশিয়ে তা দিয়ে চুল ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।

এটি আমাদের চুলে কন্ডিশনারের কাজ করে।

গোলাপ জলের সাহায্যে খুশকি দূর করার উপায়

এছাড়াও ৫০ এমএল গোলাপ জলের সাথে ৫ ফোঁটা রজমেরি ইসেন্সিয়াল অয়েল মিশিয়ে একটি বোতলে ভরে রেখে দিতে পারেন। এই মিশ্রণটি শ্যাম্পু করার পর তুলোর সাহায্যে চুলে লাগিয়ে নিতে পারেন। ইসেন্সিয়াল অয়েল কখনই খালি চুলে লাগানো উচিত নয়।

মেথির উপকারিতা

খুশকি দূর করতে মেথির ভূমিকা দারুণ।

সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে পরদিন পানি ছেঁকে নিয়ে ভালো করে পিষে নিয়ে চুলে লাগিয়ে রাখতে হবে ৪০-৪৫ মিনিট।

তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভালো করে শ্যাম্পু করে নিতে হবে।

খুশকি দূর করার সাথে সাথে মেথি আমাদের চুলকে মসৃণ করে।

মেথি একটি বহুল ব্যবহৃত খুশকি দূর করার উপায়।

নিমপাতা

খুসকির কারণে আমাদের মাথা চুলকায়।

অনেক সময় চুলকানোর ফলে মাথায় ঘা ও হয়ে যায়।

নিমপাতা ব্যবহারে তা দূর করা সম্ভব। ৪ থেকে ৫ কাপ পানির মধ্যে কয়েকটা নিমপাতা সারারাত ভিজিয়ে রাখতে হবে।

পরদিন সকালে সেই পানি ছেঁকে নিয়ে সেটা দিয়ে চুল ধুয়ে নিতে হবে।

তাছাড়া নিমপাতা পিষে নিয়ে চুলের গোরায় গোরায় লাগালেও উপকার পাওয়া যায়।

এটি গ্রাম-গঞ্জে খুশকি দূর করার উপায় হিসেবে বহুল প্রচলিত।

খুশকি দূর করতে মেহেদি

মেহেদি চুলের জন্য খুবই উপকারী। শুধু খুশকি দূর করে না মেহেদি আমদের চুলের গোঁড়া শক্ত করে।

ঘরে বসেই আমরা মেহেদি দিয়ে প্যাক বানিয়ে নিতে পারি।

মেহেদি পাতাকে গুড়ো করে তার সাথে ৪চা চামচ লেবু, ৪চা চামচ কফি, ২টো ডিম এবং ২চা চামচ মেথি গুড়োর সাথে পরিমাণ মতো চায়ের লিকার মিশিয়ে নিতে হবে।

এই মিশ্রণটি চুলে লাগিয়ে ১ঘণ্টা পর্যন্ত মাথায় রাখে ধুয়ে নিতে হবে।

এটি শুধু খুসকিই দূর করে না আমাদের চুলকে সুন্দর,মসৃণ ও চকচকে করে তোলে।

এছাড়াও খুশকি দূর করতে যা করনীয়

খুসকির সমস্যা যদি মারাত্মক হয় তাহলে অবশ্যই রোজ চিরুনি, চুলের ব্রাশ, বালিশের ওয়ার, গামছা/ টাওয়াল সাবান দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন

আমাদের প্রতিদিনের ডায়েট চার্টে কিছু পরিবর্তনের মধ্যে দিয়েও এই খুশকির সমস্যা সমাধান করা যেতে পারে।

ফলের জুস, সবুজ শাক সবজি এবং দিনে ৬ থেকে ৮ গ্লাস পানি পান হবে।

কিন্তু অবশ্যই যেকোনো ডায়েট মেনে চলার আগে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নেওয়া ভালো।

তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়ান টাইমস

অনলাইনপ্রেস/আরএস/এনজে

One Reply to “খুশকি দূর করার উপায়, প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে সমাধান”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *