অনন্য এক ভেষজ কাঁচা হলুদের উপকারিতা

কাঁচা হলুদের উপকারিতা

রিয়া সরকারঃ কাঁচা হলুদের উপকারিতা নিয়ে যত বলা হবে ততোই কম। বহু প্রাচীনকাল থেকেই কাঁচা হলুদ রান্নার সাথে সাথে ওষুধি হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছে।

কাঁচা হলুদ আমাদের শরীরের নানান সমস্যা সমাধান করে থাকে। রান্না থেকে শুরু করে রূপচর্চায়  কাঁচা হলুদের ব্যবহার দেখা যায়। এতে রয়েছে এনটি-ফাঙ্গাল, এনটি- ব্যকটেরিয়াল, এনটি-অক্সিডেনট, এনটি-ইনফ্লামেটোরি, এনটি-কারসিনোজেনিক গুনাগুন।

জেনে নেওয়া যাক তাহলে কাঁচা হলুদের উপকারিতা সম্পর্কে।

কাঁচা হলুদ হজম শক্তি বৃদ্ধি করে

রান্নায় হলুদ ব্যবহার হয়ে থাকে সাধারণত এর রঙের জন্য, তাছাড়াও আরেকটি কারণ হলো হলুদ আমাদের হজমে সাহায্য করে। এর মধ্যে রয়েছে এনটি-অক্সিডেনট এবং এনটি- ইনফ্লামাটরি যা আমাদের হজম শক্তি বৃদ্ধি করে। এটি আয়ু্র্ভেদিক ওষুধ হিসেবেও ব্যবহার হয়ে থাকে।

কাঁচা হলুদ পেটের সমস্যা দূর করে

অনেক সময়ই আমরা পেটের সমস্যায় ভুগি। অনেক কারণ থেকেই তা হয়ে থাকে। কখনো কখনো হজম না হলেও পেটে ব্যাথা হতে পারে। কাঁচা হলুদ সেই সব সমস্যা নিরাময় করতে দারুন কাজ করে। পেটের সমস্যা দূর করতে কাঁচা হলুদ খুবই উপকারী।

হাড়ের ব্যথা দূর করে

বয়স বাড়ার সাথে সাথে হাড়ের নানান ধরনের সমস্যা শুরু হতে থাকে। এনটি-ইনফ্লামাটরি হাড়ের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। কাঁচা হলুদ খাওয়ার ফলে আমাদের হাড়ের অনেক সমস্যা যেমন- আরথ্রাইটিস, ওসট্রিও-আরথ্রাইটিস এর মতো নানা জটিলতা নিরাময় হয়।

ত্বকের যত্নে কাঁচা হলুদের ব্যবহার

অনেক আগে থেকেই কাঁচা হলুদ ত্বকের সমস্যা সমাধানের জন্য ব্যবহার হয়ে আসছে। হলুদে রয়েছে এনটি- অক্সিডেনট যা আমাদের ত্বককে বিভিন্ন সমস্যার হাত থেকে রক্ষা করে। রোদে পুড়ে আমাদের ত্বকে কালচে ভাব হয়ে যায়, কাঁচা হলুদ ব্যবহার করলে সেই সমস্যা কমে যাবে। ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে কাঁচা হলুদ। এমনকি কাঁচা হলুদ ব্যবহার করে ব্রণের সমস্যাও দূর করা যায়। তাহলে এখন থেকে ব্রণের সমস্যা হলে বাইরের পণ্য না কিনে আপনার রান্না ঘরেই সমাধান খুঁজে নেয়ার চেষ্টা করুন।

ডায়াবেটিকস কমাতে সাহায্য করে

যারা ডায়াবেটিস এর সমস্যায় ভুগে থাকেন তারা অনেকেই ওষুধ খাওয়ার পাশাপাশি কিছু ঘরোয়া সমাধানও খুঁজে থাকেন এর জন্য। তাদের জন্য কাঁচা হলুদ খুবই উপকারি। কাঁচা হলুদ ইনসুলিন লেভেল কে কন্ট্রোলে রাখে। তাই ওষুধ খাওয়ার পাশাপাশি যদি প্রতিদিন কাঁচা হলুদ খাওয়া যায় তাহলে কিন্তু সমস্যা অনেকাংশেই কমে যাবে। ডায়েবেটিসকে সব রোগের জনক বলা হয়। তাই এই রোগকে কন্ট্রোলে রাখা খুবই জরুরি। কিছু কিছু নিয়ম মেনে চললেই আমাদের ডায়েবেটিকস কন্ট্রোলে থাকবে।

লিভার ভালো রাখে

কাঁচা হলুদে রয়েছে এনটি-অক্সিডেনট যা আপনার লিভারকে যেকোনো খারাপ কিছু থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে। তাই যাদের কাঁচা হলুদ খাওয়ার অভ্যাস নেই তারা চট জলদি এই অভ্যাস গড়ে তুলুন।

এছাড়াও কাঁচা হলুদ প্যানক্রিয়াটিক ক্যান্সার, প্রসটেট ক্যান্সারের মতো কঠিন রোগের হাত থেকেও আমাদের বাঁচিয়ে থাকে।

কাঁচা হলুদের অপকারিতা

কাঁচা হলুদের আবার অনেক সাইড এফেক্ট ও রয়েছে। যেগুলো জেনে নেওয়া খুবই জরুরি। গবেষণায় দেখা গেছে, অতিরিক্ত হলুদ খাওয়ার ফলে আবার পেটের অনেক সমস্যা হয়ে থাকে। তাই অবশ্যই পরিমান মতো খেতে হবে।

কাঁচা হলুদ আমাদের রক্তের কোলেসটরাল কমায় এবং রক্ত পাতলা করে। তাই যারা রক্ত পাতলার ওষুধ খেয়ে থাকেন তারা অবশ্যই খাওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন।

তথ্যসুত্র: মেডিক্যাল নিউজ টুডেএনডিটিভি

অনলাইনপ্রেস/আরএস/এনজে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *